২১ এর আগে সিগারেট নয়

Print Friendly, PDF & Email

এএফপি: সিগারেট। উটতি বয়সীদের কাছেই মূলত প্রধান আকর্শনের একটু বস্তু।কৌতুহল কিংবা স্টাইল বাড়ানোর লোক দেখানো বা বিষেশ কারো মনোযোগ আকর্ষনের হাতিয়ার হিসেবেই প্রথমে তরুনের হাতে ওঠে সিগারেট।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই হার অন্য অনেক দেশের মতোই সবচে বেশি। এবার, সিগারেটসহ তামাকজাত পণ্য কেনার ন্যূনতম বয়স ২১ করার পক্ষে ভোট দিয়েছে নিউ ইয়র্ক সিটি কাউন্সিল। আগে এ বয়সের সীমা ছিল ১৮ বছর। গত বুধবার প্রস্তাবটি ৩৫-১০ ভোটে পাস হয়।
1787235059_1378820422

সাম্প্রতিক প্রকাশিত এক গবেষণায় দেখা যায়, যুক্তরাষ্ট্রের স্কুলগামীদের মধ্যেই সিগারেটের প্রতি আসক্তির হার সর্বাধিক ২৬ ভাগ। স্নাতকোত্তরে এ হার মাত্র ৬ ভাগ। এবার তাই স্কুলগামী শিক্ষার্থী যাদের বয়স ২১ এর নিচে তাদের কাছে সিগারেট বিক্রিতে বাধা নিষেধ আরোপ করা হলো জনবহুল নিউইয়র্ক সিটিতে।
যুক্তরাষ্ট্রের জনবহুল মেট্রোপলিটান সিটি হিসেবে নিউ ইয়র্কই প্রথম তামাকজাত পণ্য ক্রেতাদের ন্যূনতম বয়স ২১ করার পক্ষে রায় দিল। মহানগরটিতে ৮৫ লাখ মানুষ বসবাস করে।
নিউ ইয়র্কের মেয়র মাইকেল ব্লুমবার্গ তাৎক্ষণিকভাবে একে স্বাগত জানিয়েছেন। তিনি এ প্রস্তাবের সমর্থক। প্রস্তাবটির অন্যতম উপস্থাপক কাউন্সিলম্যান জেমস জেনারো বলেন, এ উদ্যোগের ফলে ‘আক্ষরিক অর্থেই অনেক অনেক জীবন রক্ষা পাবে।’
যুক্তরাষ্ট্রের সব অঙ্গরাজ্যেই ১৮ বছরের কম বয়সীদের কাছে তামাকজাত পণ্য বিক্রি নিষিদ্ধ। কয়েকটি অঙ্গরাজ্যে বয়সের এ সীমা এক বছর বাড়িয়ে ১৯ করা হয়েছে। মাত্র দুটি শহরে এত দিন ২১ বছরের নিচে কারো কাছে তামাকজাত পণ্য বিক্রি নিষিদ্ধ ছিল।
প্রস্তাবটি আইনে পরিণত হতে ব্লুমবার্গের সই লাগবে। এ জন্য আগামী ৩০ দিনের মধ্যে তাঁকে এতে সই করতে হবে। এরও ১৮০ দিন পর এটি কার্যকর হবে। তবে বিশ্লেষকদের কারো কারো আশঙ্কা, এ উদ্যোগের ফলে যুবসমাজ চোরাই বাজার থেকে সিগারেটসহ অন্য তামাকজাত পণ্য কিনতে উৎসাহী হতে পারে। এএফপি।

ডেস্ক রিপোর্ট

Comments