হাকালুকি হাওরে ৩৩ প্রজাতির ৩৭০ পাখির পায়ে রিং

Print Friendly, PDF & Email

শ্রীমঙ্গল , ২৭ ফেব্রুয়ারীঃ এশিয়ার বৃহত্তম হাওর মৌলভীবাজারের হাকালুকি হাওর। এই হাওরে দ্বিতীয়বারের মতো পাখির পায়ে রিং লাগানো কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। গত ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৪ তারিখ পর্যন্ত হাওরে আসা অতিথি পাখির পায়ে এ রিং লাগানো হয়।

বার্ড ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা পাখি বিশেষজ্ঞ ইনাম আল হক জানান, এবার ৩৩ প্রজাতির ৩৭০টি পাখির পায়ে রিং লাগানো হয়েছে। এ কার্যক্রমে বাংলাদেশ বার্ড ক্লাবের ১০ জন এবং যুক্তরাজ্যের দু’জন বিশেষজ্ঞ দল অংশগ্রহণ করে।

গত ৭ দিনে ৩৩ প্রজাতির ৩৭০টি পাখি ধরে মাপঝোক নিয়ে পায়ে শনাক্তকারী আংটি পরিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এই রিং লাগানো কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়ে কিছু বিরল প্রজাতির পাখির সন্ধান পাওয়া গেছে। এর মধ্যে পাতারি ফুটকি, তিলা ঝাড়ফুটকি, পালাসি ফড়িংফুটকি, বৈকাল ঝাড়ফুটকি এবং লালাচাঁদি ফুটকি রয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি ধরা হয়েছিল মেটে ফুটকি।

ইনাম আল হক আরও জানান, পাখির অজানা তথ্য জানার জন্য সারা বিশ্বে এই কার্যক্রম পরিচালিত হয়। এই রিংয়ে কিছু তথ্য থাকে যা দেখে পাখি বিশেষজ্ঞরা ইন্টারনেটে ঢুকে পাখির অবস্থান সম্পর্কে জানতে পারবে।

এর আগে ২০০৯ সালের মার্চ মাসে হাকালুকি হাওরে ১৬টি পাখির গায়ে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার এবং ৩৪টি পাখির পায়ে রিং লাগানো হয়।

পাখির পায়ে রিং লাগানোর পাশাপাশি বাংলাদেশ বার্ড ক্লাব ছোট আকারের পরিযায়ী পাখি সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করে।

সবুজপাতা প্রতিবেদন

Comments