মংলা: জোয়ারের বেশে শহরে পানি ঢুকছে প্রতিনিয়ত

Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা: শুক্রবার।

mongla

সুন্দরবনের কোল ঘেঁষা ছোট শহর মংলা, ক্রমান্নয়ে হুমকির মুখে পড়ছে জোয়ারের পানিতে। প্রতিনিয়িত  নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে জোয়ারের  বেশে শহরে ঢুকে রাস্তা ঘাট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ডুবিয়ে দিচ্ছে। দিন দিন এ পানির স্তর বাড়ছে। বাড়ছে নাগরিক দুর্ভোগও।  কর্তৃপক্ষ বিকল্প পন্থায় জোয়ারের পানির প্লাবন রোধে শহরের প্রধান প্রধান রাস্তঘাট কয়েক দফা উঁচু করলেও তাতে কোন কাজে আসছে না। রাস্তাঘাট উঁচু করার সাথে পাল্লা দিয়ে  বাড়ছে জোয়ারের পানির প্লাবন।

করনীয় ঠিক করতে সম্প্রতি এক সভার আয়োজন হয়। সেখানে এর কারণ হিসেবে জলবায়ু পরিবর্তনে যে সমুদ্রে পানির উচ্চতা বৃদ্ধি পাচ্ছে,তাকেই দায়ী করা হয়।   জানানো হয়, ভবিষ্যৎ পরিস্থিতি মোকাবেলায় আন্তজার্তিক সংস্থা রকফেলার ফাউন্ডেশন ও ইন্টারন্যাশনাল কাউন্সিলর ফর লোকাল এনভায়রনমেন্ট ইনিশিয়েটিভসের যৌথ উদ্যোগে মংলা বন্দর পৌরসভাকে এশিয়ান সিটি ক্লাইমেট চেঞ্জ রিসিলিয়েন্স নেটওয়ার্কের আওতাভুক্ত করা হয়েছে।

বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মু. শুকুর আলী ছিলেন এ সভার প্রধান অতিথি। প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আন্তর্জাতিক সংস্থা রকফেলার ফাউন্ডেশনের প্রতিনিধি রমিজ খান্না। পৌর কাউন্সিলর বাবুল চৌধুরীর সঞ্চলনে স্থানীয় ব্যবসায়ী, শিক্ষক, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ এ সময় উপস্থিত ছিলেন ।

প্রসঙ্গত, মংলা শহরে লক্ষাধিক মানুষের বসবাস। পশুর ও মংলা নদীসহ অসংখ্য খাল রয়েছে এ শহরটি ঘিরে। প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমের অমাবশ্যা আর পূর্ণিমা ছাড়াও নিম্ন ও লঘু চাপের প্রভাবে নদী ও খালের পানি কয়েকগুণ বেড়ে তা সমগ্র শহরে সয়লাব হয়ে পড়ে।  পৌর মেয়র মো. জুলফিকার আলী জোয়ারের প্লাবন রোধে আশ্বাস দিয়ে বলেছেন, আগামী ১ বছরের মধ্যে শহর রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজ হাতে নেয়া হবে।

নিজস্ব প্রতিবেদক

Comments