রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিয়ে আর কোন কর্মসূচি দিলে সাথে সাথে হরতাল দিতে বাধ্য হবো-আনু মুহাম্মাদ

Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা:

বুধবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিলের দাবিতে ‘তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির বিক্ষোভ মিছিলপূর্ব সমাবেশে  এসব কথা বলেন- আনু মুহাম্মাদ।প্রতারণামূলক ভাবে রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নাম ফলক উন্মোচন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব আনু মুহাম্মদ। তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী যেভাবে প্রতারণা করে রামপাল বিদ্যূৎ কেন্দ্রের নাম ফলক উন্মোচন করেছেন, তার সাথে সাথে হরতাল দেয়া উচিত ছিল। আমরা ঈদ ও পূজার কথা বিবেচনা করে তা করিনি।”

তিনি  বলেন, “প্রধানমন্ত্রী রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিয়ে আর কোন কর্মসূচি দিলে সাথে সাথে হরতাল দিতে বাধ্য হবো। আমরা সেখানে অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা করবো। গণরায় উপেক্ষা করে ফলক উন্মোচন করা যাবে, বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করা যাবে না। সেখানকার মানুষ ও সারা দেশের মানুষ এর প্রতিরোধ করতে প্রস্তুত। সুন্দরবন আমাদের প্রাকৃতিক রক্ষাবাধ। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নামে কলা ঝুলিয়ে সেখানকার ভূমি দখলের মহড়া শুরু হয়েছে।”

আনু মুহাম্মদ বলেন, “ভারতের প্রধানমন্ত্রী ও বিদ্যুৎ মন্ত্রী বলেছেন, আমাদের সুন্দরবনের কোন ক্ষতি তারা করবেন না। তারা আমাদের কোন কথাই রাখেনি। সীমান্ত হত্যা এখনো চলছে, টিপাইমুখ বাঁধ ও তিতাস নদীর নিকট তাদের কমসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন। আমরা তাদের বিশ্বাস করতে পারি না।”

তিনি বলেন, “এ বিদ্যুৎ কেন্দ্র একেবারেই বে-আইনি। এর প্রক্রিয়ায় দূর্নীতি করা হয়েছে বলেও অভিযোগ তার।

তিনি বলেন, “দুই সরকার যেভাবে সুন্দরবন ধ্বংসের আয়োজন করছে, এটা তাদের শক্তি প্রদর্শন নয়, নৈতিকতার পরাজয়। জনগণকে মোকাবেলা করতে তাদের ভীতির লক্ষণ।”

ঈদের মাঠে ও পূজার মণ্ডপে এ ব্যাপারে কথা বলে সর্বস্তরে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান তিনি

 

সবুজপাতা ডেস্ক

Comments