হাটে হাটে ধান ক্রয়কেন্দ্র চান কৃষকেরা

Print Friendly, PDF & Email

রংপুর, ২ জুন: ধানের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করতে দেশের প্রতিটি হাট বাজারে সরকারি উদ্যোগে ক্রয়কেন্দ্র খুলে কৃষকদের ধান কেনার দাবি জানিয়েছে সমাজতান্ত্রিক ক্ষেত মজুর ও কৃষক ফ্রন্ট।

গতকাল রোববার দুপুরে রংপুর মহানগরীর মডার্ন মোড়ে রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের পাশে অবস্থান কর্মসূচি পালনকালে সরকারের প্রতি এ দাবি জানান সর্বস্বান্ত কৃষকেরা।

দুই ঘণ্টাব্যাপী অবস্থান কর্মসূচিতে সমাজতান্ত্রিক ক্ষেত মজুর ও কৃষক ফ্রন্টের রংপুর জেলা সমন্বয়ক আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘এ বছর প্রতি মণ ধান উৎপাদনে কৃষকের খরচ হয়েছে ৭০০-৭৫০ টাকা। অথচ বর্তমানে কৃষকদের বাধ্য হয়ে ৪০০-৪৫০ টাকায় প্রতি মণ ধান বিক্রি করতে হচ্ছে। সরকার মণ প্রতি ৮৮০ টাকা ধানের মূল্য নির্ধারণ করে ক্রয়ের ঘোষণা দিলেও কোথাও এ দামে ধান ক্রয় করেনি। ফলে দিন দিন সর্বস্বান্ত হচ্ছে কৃষকেরা।’

তিনি বলেন, ‘ক্রমাগত বন্ধ্যা বীজ, ক্ষতিকারক সার ও কীটনাশকে বাজার সয়লাব হয়ে গেছে। অন্যদিকে ক্ষেত মজুরদের বছরে তিন মাস কাজ থাকে বাকি নয় মাস কোনো কাজ নেই। ১৬ কোটি মানুষের খাদ্য এবং শিল্পের কাঁচামালের উৎস কৃষি। অথচ প্রতি বছর জাতীয় বাজেটে সবচেয়ে বেশি অবহেলিত হয় এই কৃষি খাত। এখানে বাজেট বরাদ্দ এতই সামান্য যা এই খাতের সঙ্গে যুক্ত বিশাল জনগোষ্ঠীর সঙ্গে তামাশা করার সামিল।’

অবিলম্বে দেশের হাটে হাটে ক্রয়কেন্দ্র খুলে সরকার ঘোষিত মূল্যে ধান ক্রয়, গরীব মানুষের মাঝে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস সরবরাহের জন্য রেশন কার্ডের ব্যবস্থা, কৃষি ফসল উৎপাদন খরচ কমাতে সরকারি উদ্যোগে কৃষককে ভর্তূকী প্রদান এবং উন্নয়ন বাজেটের ৪০ শতাংশ কৃষিখাতে বরাদ্দের দাবিও জানান আনোয়ার হোসেন।

অবস্থান কর্মসূচিতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন বাসদ (মার্কসবাদী) রংপুর জেলা কমিটির সদস্য পলাশ কান্তি নাগ ও আহসানুল আরেফিন তিতু, কৃষক ফ্রন্টের জেলা সংগঠক বাবু মিয়া ও শাহিদার রহমান সুমন।
সবুজপাতা প্রতিবেদন

Comments