আউশ চাষে ৩০ কোটি ২১ লাখ টাকার প্রণোদনা

Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা, ২৩ এপ্রিল: দেশের ৪৮টি জেলায় ২ লাখ ১০ হাজার কৃষকের জন্য আউশ ও নেরিকা আবাদের জন্য ৩০ কোটি ২১ লাখ টাকার কৃষি উপকরণ প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে সরকার। এর মধ্যে আউশ ধানের জন্য ২৪ কোটি ৯ লাখ এবং নেরিকার জন্য ৫ কোটি ৯১ লাখ টাকা।

দেশে ধান নিয়ে যে গবেষণা এর প্রায় পুরোটাই বোরোকেন্দ্রিক। অথচ বোরোর উৎপাদন খরচ বেশি। এ কারণে বোরোর ওপর চাপ কমাতে গত কয়েক বছর ধরে আউশ আবাদের উপর নজর দিচ্ছে সরকার।

২০১৪-১৫ অর্থ বছরে আউশ ধান চাষে ৩০ কোটি ২১ লাখ টাকার প্রণোদনা দেয়া এর সুফল হিসেবে অতিরিক্ত ৭০ হাজার টন চাল উৎপাদন হবে। যার দাম ২২৪ কোটি টাকা এবং খড়ের দাম ৭ কোটি টাকা। চাল ও খড়ের মোট দাম ২৩১ কোটি টাকা। এই প্রণোদনার আওতায় কৃষক সার ও বীজ কেনার জন্য টাকা পাবে। আগামী ১০ দিনের মধ্যে প্রণোদনার টাকা কৃষকের কাছে পৌঁছে যাবে।

বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী আউশে প্রণোদনা-সংক্রান্ত এসব তথ্য জানান।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, সেচের কারণে বোরোর উৎপাদন খরচ অনেক বেশি। এক কেজি বোরো চাল উৎপাদনে তিন হাজার ২০০ লিটার পানি লাগে। আর এ পানির জোগান দিতে গিয়ে ভূগর্ভস্থ পানির স্তর দিন দিন নিচে নেমে যাচ্ছে। এর বিপরীতে আউশে সেচ খরচ নেই। সব মিলিয়ে সরকার বোরো চাষের উপর নির্ভরতা কমিয়ে আনতে চায়। গতবছরও আউশে প্রণোদনা দেয়া হয়।

মন্ত্রী বলেন, মাথাপিছু প্রণোদনা দেয়া হবে উফশী আউশের ক্ষেত্রে ১ হাজার ৩৫০ টাকা, আর নেরিকা আবাদের জন্য ১ হাজার ৯৭০ টাকার সার ও বীজ সরবরাহ করা হবে। এর মধ্যে উফশী এবং নেরিকা চাষে উভয় ক্ষেত্রে সেচ সহায়তা হিসেবে জনপ্রতি ৪শ টাকা এবং নেরিকা চাষে আগাছা দমনের জন্য আরো ৪শ টাকা করে দেয়া হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে কৃষি মন্ত্রী জানান।

আউশ আবাদের প্রণোদনার আওতায় ২ লাখ ১০ হাজার বিঘা জমি চায়ের আওতায় আনা হয়েছে।

সবুজপাতা প্রতিবেদন

Comments