বাগানেই নষ্ট হচ্ছে কোটি টাকার ফুল !

Print Friendly, PDF & Email

সবুজপাতা ডেস্ক,১০ ফেব্রুয়ারীঃ কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ও হারবাং ইউনিয়ন ফুলের গ্রাম নামেই পরিচিত। এ দুই ইউনিয়নের অধিকাংশ লোকের রুটি-রুজি ফুল চাষের ওপর নির্ভরশীল। ফুল বিক্রি করেই চলে তাদের সংসার। কিন্তু দেশব্যাপী ২০ দলীয় জোটের ডাকা টানা হরতাল-অবরোধে সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়েছে ফুল চাষীদের ওপর।সরবরাহের অভাবে প্রতিদিন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে কোটি টাকার ফুল।

এ কারণে গত এক মাসে দুই ইউনিয়নের শতাধিক বাগানে বিক্রির অভাবে নষ্ট হচ্ছে ফুটন্ত গোলাপ ও গ্ল্যাডিওলাস ফুল। ফুল কাটা বন্ধ থাকায় বেকার হয়ে পড়েছে অন্তত তিন শতাধিক শ্রমিক-কর্মচারী। এতে করে তাদের পরিবারে চলছে চরম দুর্বিসহ অবস্থা।

Chakaria-Golap-Bagan

ফুলচাষীরা জানিয়েছেন, টানা অবরোধ ও হরতালের কারণে গত এক মাসে তাদের কমপক্ষে কোটি টাকার লোকসান গুণতে হয়েছে।

দক্ষিণ চট্টগ্রামের গোলাপ ফুলের গ্রাম নামে পরিচিত চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ও হারবাং ইউনিয়ন। প্রথম দিকে অল্প জমিতে নানা জাতের ফুলের চাষ হলেও সময়ের পরিক্রমায় এখন দুই ইউনিয়নের প্রায় দুইশ’ একর জমিতে ফুল চাষ হচ্ছে।

বরতলী গ্রামের ফুল চাষী শফিউল্লাহ, মোহাম্মদ আলম ও রায়হানসহ অনেকে জানিয়েছেন, অবরোধের কারণে ফুলের সরবরাহ না থাকায় ব্যবসায়ীরা ফুল কেনার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে।

চকরিয়া বরইতলী ফুল বাগান মালিক সমিতির নেতা মঈনুল ইসলাম বলেন, এখানকার ফুল চাষীরা বছরে কমপক্ষে ১০ থেকে ১২ কোটি টাকার ব্যবসা করে। কিন্তু টানা হরতাল-অবরোধের কারণে বর্তমানে ফুল ব্যবসা বন্ধ হওয়ার বন্ধের উপক্রম।

চকরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আতিক উল্লাহ জানান, চলতি বছর পুরো উপজেলায় প্রায় ১শ’ হেক্টর জমিতে ফুল চাষ হয়েছে। এরমধ্যে ৭০ হেক্টর গোলাপ এবং ৩০ হেক্টর জমিতে গ্ল্যাডিওলাস ফুলের চাষ হয়েছে।

Comments