‘২০১৫’র মধ্যেই ৩৭ বিশ্ববিদ্যালয়ে যাবে ইন্টারনেট’

Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা: ১৮ আগষ্ট: দেশের তরুন প্রজন্মের সবার হাতে তথ্য প্রযুক্তি পৌছে দেবার লক্ষ্যে দেশের ৩৭ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইন্টার নেট সুবিধা পৌছে যাবে আগামী বছর এপ্রিলের মধ্যে। এবং এই ইন্টারনেট গতি হবে কমপক্ষে ১ এমবিপিএস এর বেশি।

সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক। ক্যাম্পাস আইটি ফেস্টিভাল-২০১৪ উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটি এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

লিখিত বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘গত দুই বছরের সাফল্যের ধারাবাহিকতায় আগামী ১৪ ও ১৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দু’দিন ব্যাপী ‘তৃতীয় জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব। অংশগ্রহণকারীর দিক দিয়ে দেশের সবচেয়ে বড় এই ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসবটি এবার ডিইউআইটিএসের সঙ্গে যৌথভাবে করতে যাচ্ছে সরকারের আইসিটি বিভাগ।

opgw

প্রযুক্তির অগ্রগতিতে বাস্তবতা:

প্রযুক্তির এই যুগেও বাংলাদেশের বিশাল জনগোষ্ঠী এখনো ইন্টারনেট সেবার বাইরে রয়েছে। দেশে বিদ্যমান ৪৮৬টি উপজেলার মধ্যে ৪টি মেট্রোপলিটন শহরে (ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা) প্রশাসনিক উপজেলা নেই।

এজন্য ২৯০টি উপজেলায় দ্রুতগতির ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগের জন্য অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল নেটওয়ার্ক স্থাপন করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।প্রস্তাবিত এ প্রকল্পের প্রকল্প প্রস্তাবে ৪৮২টি উপজেলাকে বিবেচনা করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৭৯টি উপজেলার বিটিসিএলের অপটিক্যাল ফাইবার সংযোগ রয়েছে। বাকি ৩০৩টি উপজেলার মধ্যে ১৩টি উপজেলায় এ মুহূর্তে ভৌগোলিক কারণে অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল নেটওয়ার্ক সংযোগ দেয়া সম্ভব নয়, তাই অবশিষ্ট ২৯০টি উপজেলায় সংশ্লিষ্ট জেলা থেকে অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল স্থাপন করা হবে।

বঞ্চিত এলাকার মধ্যে রয়েছে ভোলা সদর, সন্দ্বীপ, হাতিয়া, মহেশখালী, কুতুবদিয়া, রাঙামাটির বাঘাইছড়ি, লংদু, জুরাইছড়ি, বিলাইছড়ি, বরকল, বরিশালের মুলাদী, মেহেদীগঞ্জ এবং হিজলা এলাকা।

পরিকল্পনা কমিশন সূত্র জানায়, ‘উপজেলা পর্যায়ে অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল নেটওয়ার্ক উন্নয়ন’ শীর্ষক এই প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ৫০০ কোটি টাকা। ২০১৫ সালের মধ্যে এটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স লিমিটেডের (বিটিসিএল)। এর আওতায় নতুন করে ৭ হাজার ৮৩০ কিলোমিটার অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল স্থাপন করা হবে। একই সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য সংশ্লিষ্ট এলাকায় টার্মিনাল নির্মাণের সরঞ্জাম, জেনারেটর প্রভৃতি কেনা হবে।

প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে দেশের বিপুলসংখ্যক জনসংখ্যা তথ্যপ্রযুক্তি সেবার আওতায় আসবে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

Comments