নির্বিচারে গাছ কাটা বন্ধে আইন দরকার

Print Friendly, PDF & Email

Dhaka:  গাছ নয়,আমাকে কাটুন। অভিনব এ দাবীতে, শরীরে গাছের পাতা জড়িয়ে মানববন্ধন আর গাছ নিধনকারীদের বিরুদ্ধে রং বেরং এর মুখোশ পরে প্রতিবাদ হয়েছে মিরপুরে,যেখানে গত কয়েকমাস ধরেই নানা অজুহাতে গাছ কেটে ফেলা হয়েছে প্রায় পাচ শতাধিক। এখনো গাছ কাটা চলছে। বিশ্বকাপ ক্রিকেট খেলার আগে থেকে শুরু হয়েছে গাছকাটা, কিন্তু একটিও গাছ সেখানে নতুন করে রোপিত না হ্ওয়ার ক্ষোভ প্রকাশ করেন উপস্থিত তরুনেরা।

10309997_10202645817841245_1990137210_o

গাছ নেই,বৃষ্টি নেই’‘গাছ কাটি বৃষ্টি তাড়াই’‘উন্নয়নে সবুজের অঙ্গীকার চাই-পরিকল্পনায় চাই প্রকৃতির দায়’‘আমরা গাছের জন্য,গাছ আমাদের জন্য’ সহ নানা ধরনের ফেস্টুন বুকে লাগিয়ে এই প্রতিবাদে স্থানীয়রা সহ অংশ নেয় প্রায় ২ শতাধিক তরুন।তারা গাছ কাটার আগে গাছ লাগানোর নীতিমালা প্রণয়নের দাবী জানান।

স্থপতি ইকবাল হাবিব, প্রকৃতি লেখক মোকারম হোসেন প্রমূখ এই প্রতিবাদে অংশ নিয়ে র্নিবিচারে গাছকাটা বন্ধে আইনী পদক্ষেপ নেবার তাগিদ দেন।

‘আমরা কোন উন্নয়ন কাজের ঠিকাদারী পেলেই,আগে গাছ কেটে খরচে পয়সা তুলি। যদি অন্যন্য নীতিমালার মত উন্নয়ন কাজে ক্ষতিগ্রস্থদের ক্ষতিপূরনের বিধান আমরা গাছের জন্য করতে পারি,তাহলেই কেবল ঠিকাদাররা গাছ না কেটে কিভাবে উন্নয়ন কাজ করা যাবে সে বিষয়ে ভাববে। তাই আমরা এ সংক্রান্ত আইনী সুরক্ষার কথা ভাবছি,গাছের জন্য। কেননা, এভাবে র্নিবিচারে গাছ কাটা কোন সভ্য সমাজে হতে পারে না। পুরো নগর যেন মরুভুমির মত দেখায়, গাছ না থাকলে নগরে উন্নয়ন আর সৌন্দর্যবধন কোনটাই সম্পন্ন হয় না’ বলেন স্থপতি ইকবাল হাবিব।

গাছ বাচা্ও-সবুজ বাচা্ও আন্দোলনের আহবায়ক শহীদ সুরকার আলতাফ মাহমুদ কণ্য শা্ওন মাহমুদ বলেন, ‘শ্রীমঙ্গলে এখনো শেষ রাতে কাথা গায়ে জড়াতে হয়,ঠান্ডা থেকে বাচতে। কেননা সেখানে চারিদিকে সবুজ আছে,আছে গাছ পালা। আর ঢাকায় আমরা বাস করছি রেকর্ড পরিমান তাপমাত্রায়, নগরে বসবাসে সবুজের যখন সবচে বেশি প্রয়োজন,তখন সবুজ বিনষ্ট হচ্ছে নির্বিচারে। এটার বিরুদ্ধে দেশ পরিচালনা কর্তৃপক্ষের সবচে বেশি সরব হ্ওয়ার কথা থাকলে্ও কেউ কথা বলে না, প্রতিবাদ করে না। আমারা যখন মাঠে নেমেছি,তখন এই আন্দোলন কে আমরা এগিয়ে নেব’।

এই আয়োজন এর শেষ দিকে একটি র‍্যালী করে কোথায় কোথায় গাছ কাটা হচ্ছে,তা পরিদর্শন করেন অংশগ্রহন কারীরা। সেখানে একদল তরুণ মুখে লুটেরাদের মুখোশ পরে গাছ নিধনকারীদের প্রতিকী নিন্দা জ্ঞাপন করেন।

পরিবেশ নিয়ে কাজ করে তারুণ্যের সংগঠন সবুজপাতার উদ্যোগে এতে পরিবর্তন চাই, তরুপল্লব, আর গ্রীন মাইন্ড সোসাইটি সহ অন্যন্যরা অংশ নেয়।

এ আয়োজনের সভাপতি সবুজপাতার উদ্যোক্তা সাহেদ আলম জানান, ‘প্রৃথিবীর কোন দেশে সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য গাছ কেটে প্লাস্টিকের গাছ লাগানোর নজির বিরল, যেটা খুব বেশি দেখা যায় ঢাকায়। গাছ যদি না থাকে তাহলে কোন উন্নয়ন পূর্নতা পায় না। দেশে যে প্রতিবছর রেকর্ড পরিমান তাপমাত্রা বাড়ছে,তার পেছনে আমাদের এই সবুজ ভুমি বিনষ্টের কারণ অনেক বেশি। সবুজ বাচাতে তাই গন আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে’ বলে জানান তিনি।

Comments