গালাপাগোস পৃথিবীর সুন্দরতম দ্বীপ

সবুজপাতা ডেস্ক, ১৫ জুলাইঃ বলতে পারেন, পৃথিবীর ভূস্বর্গ? জানি, আপনার চটপট উত্তর হবে, কাশ্মির। কিন্তু, পর্যটকদের বিচারে গালাপাগোস-ই সেই কাঙ্ক্ষিত ‘প্যারাডাইস অফ আর্থ’, দুনিয়ার সেরা দ্বীপ, যা চার্লস ডারউইনের জন্য প্রসিদ্ধ হয়ে রয়েছে।

সম্প্রতি আমেরিকার একটি বিখ্যাত ভ্রমণ ম্যাগাজিন পাঠকদের মতামত জানতে চায়। পছন্দের ভোটাভুটিতে সেরা হয় গালাপাগোস। সেরা হওয়ার অন্যতম কারণই হল এখানকার জীববৈচিত্র্য। ইকুয়েডর উপকূল থেকে আরও ৬০০ মাইল ভিতরে এই দ্বীপটিতে বহিরাগত অনেক প্রাণীর সন্ধান মেলে। দেখা যায় দৈতাকৃতি কচ্ছপ। চোখে পড়ে অনেক বিরল পাখি। তেমনই রয়েছে বিরল কিছু গাছ। দুনিয়ার আর কোথাও সচরাচর দেখা যায় না।

পাঠকের ভোটের নিরিখে দুনিয়ার মোট ১০টি দ্বীপের তালিকা বানিয়েছে ওই ভ্রমণ পত্রিকাটি। তার মধ্যে রয়েছে বালি, মালদ্বীপ, তাসমেনিয়া, হাওয়াই দ্বীপও।download (1)

গালাপাগোস দ্বীপ সামুদ্রিক জীববৈচিত্র্যের জন্যই জনপ্রিয়তার শীর্ষে ইকুয়েডরের এই দ্বীপটি। চার্লস ডারউইন তার অভিব্যক্তিবাদ নিয়ে গবেষণা করেছিলেন এখানেই। সামুদ্রিক গোসাপ থেকে নীল পায়ের বুবিস, সমুদ্র-সিংহ এমন অনেক প্রাণীরই দেখা মেলে এই দ্বীপে। ‘ঝুঁকির মধ্যে থাকা ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ’-এর তালিকা থেকে ২০১০ সালে ইউনেস্কো বাদ দেয় এই দ্বীপটিকে। তার কারণ, খুব সচেতন ভাবে এই দ্বীপের জীববৈচিত্রকে রক্ষা করে চলেছে সেখানকার সরকার।

বালি দ্বীপ জনপ্রিয়তায় গালাপাগোসের ঠিক পরেই, মানে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপটি। অস্ট্রেলিয়ান ও ব্রিটিশ পর্যটকদের কাছে অন্যতম সেরা গন্তব্য। তবে, ছুটি কাটাতে বহু দেশ থেকেই সারা বছর প্রচুর পর্যটক আসেন এখানে।রয়েছে হিন্দু মন্দিরও।

মালদ্বীপ পর্যটকদের ভোটে তৃতীয় মালদ্বীপ। মধুচন্দ্রিমা যাপনের সেরা জায়গাগুলোর একটি। দিনে গড় তাপমাত্রা ৩১ ডিগ্রির আশপাশে, রাতে ২৩ গড়ে ডিগ্রি।ফটিক-স্বচ্ছ জল, ধু-ধু সমুদ্রসৈকত, বিলাসী রিসর্ট এসবই হাতছানি দেয়।

মাউই দ্বীপ হাওয়াইয়ের বিশেষ এই দ্বীপটি রয়েছে জনপ্রিয়তায় সপ্তমে। বিশ্বের সেরা দ্বীপগুলোর তালিকা মাউই ছাড়া কখনোই সম্পর্ণ হবে না।

মালটা পর্যটকদের বিচারে দশে রয়েছে বৃটিশ মালটা দ্বীপ। প্রাকৃতিক পরিবেশের কারণে প্রচুর ছবিরও শ্যুটিং হয় এখানে। মালটার রাজধানী ভলেট্টা ঐতিহাসিক জায়গা। ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজের মধ্যে রয়েছে।– ওয়েবসাইট।

scroll to top