ইঁদুর বছরে প্রায় ১২ থেকে ১৫ লাখ টন খাদ্য শস্য নষ্ট করে

Print Friendly, PDF & Email

রংপুর, ৩০ অক্টোবর : সারাদেশে ইঁদুর বছরে গড়ে ৭০ কোটি টাকা মূল্যের প্রায় ১২ থেকে ১৫ লাখ টন খাদ্যশস্য এবং অন্যান্য ফসল নষ্ট করে। পাশাপাশি ইঁদুর বিভিন্নভাবে বসতবাড়ি, অফিস-আদালত, প্রতিষ্ঠান, গুদাম, রাস্তা-ঘাটের ব্যাপক ক্ষতি করছে।

কৃষি বিশেষজ্ঞরা গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে রংপুর অঞ্চলে ইঁদুর নিধন অভিযান ২০১৫ এর উদ্বোধন এবং পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে এ তথ্য প্রদান করেন।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর-এর রংপুর অঞ্চল, রংপুর জেলা ও রংপুর সদর উপজেলা অফিস যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রংপুর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ মো. সাইফুল ইসলাম। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সরফুদ্দীন আহম্মেদ ঝন্টু। তিনি এসময় চলতি মৌসুমের রংপুর অঞ্চলের ইঁদুর নিধন অভিযানের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

অনুষ্ঠানে রংপুর কৃষি অঞ্চলের পাঁচ জেলার উপ-পরিচালক, জেলা প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা, অতিরিক্ত উপ-পরিচালক (উদ্ভিদ সংরক্ষণ), উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা এবং পুরস্কার প্রাপ্ত কৃষক ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন রংপুররস্থ তাজহাট কৃষি প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউট (এটিআই)-এর ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ, আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা ও আঞ্চলিক ধান গবেষণা কেন্দ্রের প্রতিনিধি এবং কৃষি তথ্য সার্ভিসের আঞ্চলিক বেতার কৃষি কর্মকর্তারা।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের জেলা প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. মকবুল হোসেন।

তিনি তার উপস্থাপনায় বলেন, গত বছর রংপুর অঞ্চলে সাত লাখ ৬৬ হাজরের বেশী ইঁদুর নিধন করা হয়েছে। এর আগে কৃষি কর্র্মী, শিক্ষার্থী ও কৃষকদের বছরব্যাপী বিভিন্ন প্রশিক্ষণ ও উদ্বুদ্ধকরণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ইঁদুর নিধনের গুরুত্ব সম্পর্কে অবহিত হরা হয়েছে।

প্রধান অতিথি রংপুর সিটি মেয়র তার বক্তব্যে বলেন, ইঁদুর ফসলের যেমন ক্ষতি করে তেমনি বর্ষার সময় রাস্তার পাশে গর্ত করে রাস্তাগুলোও নষ্ট করে দেয়। এতে প্রতিবছর রাস্তা নির্মাণের জন্য সরকারের প্রচুর ব্যয় করতে হয়। তিনি জাতীয়ভাবে ইঁদুর নিধন কার্যক্রমের প্রংশসা করে এর সাফল্য কামনা করেন এবং সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ইঁদুর নিধনের যে কোন কার্যক্রমে কৃষি সম্প্রসারণ অধিফতরকে সব ধরণের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

বিগত ২০১৪ সালে সর্বোচ্চ সংখ্যক ইঁদুর নিধন করে রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার কৃষক মো. আজিজার রহমান, গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কৃষক বাচ্চু রাম বর্মন, কুড়িগ্রাম জেলার সদর উপজেলার কৃষক মো. ইছার আলী, লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার কৃষক মো. জহিরুল ইসলাম এবং নীলফামারী জেলার জলঢাকা উপজেলার কৃষক মোঃ আব্দুল জলিল। তারা প্রত্যেকে নিজ নিজ জেলার পক্ষে প্রথম পুরস্কার গ্রহণ করেন।

কৃষি কর্মী পর্যায়ে প্রথম পুরষ্কার গ্রহণ করেন রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার মাহফুজার রহমান, একই উপজেলার উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. মোশফিকুর রহমান দ্বিতীয় পুরস্কার এবং পীরগঞ্জ উপজেলার উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. মোস্তাফিজার রহমান তৃতীয় পুরস্কার গ্রহণ করেন। ইঁদুর নিধনে সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার মোনাইল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং উপজেলা হিসেবে রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলাকে পুরস্কৃত করা হয়।

Comments