তিস্তার ঢলে বিলীন ৪২ চর, ৪৪ গেট উন্মুক্ত

Print Friendly, PDF & Email

লালমনিরহাট, ১৫ জুন: উজানের ঢলে ফুঁসে উঠেছে তিস্তা। বর্ষা মওসুমের শুরুতেই তিস্তা নদীর পানি দুটি চ্যানেলে প্রবাহিত হওয়ায় চরাঞ্চলের বাসিন্দারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। উজানের ঢল ধেয়ে আসায় পরিস্থিতি সামাল দিতে তিস্তা ব্যারেজের ৪৪টি সুইসগেট খুলে দেয়া হয়েছে। এতে ডুবে গেছে উজান ও ভাটির ৪২টি চর। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে ওই সব চরের লক্ষাধিক মানুষ। থৈথৈ পানিতে ভাসছে ওই অঞ্চল।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রোববার সকাল থেকে আবারও তিস্তার পানিপ্রবাহ ডালিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার ২৩ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তিস্তাপাড়ের চর পারুলিয়া গ্রামের একাধিক বাসিন্দা জানান, তিস্তা নদীর পানি রাতে বৃদ্ধি পাওয়া এবং দুটি চ্যানেলে নদী প্রবাহিত হওয়ায় তারা আতঙ্কিত।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, তিস্তা ব্যারেজের উজানে ২ বছর ধরে বর্ষার সময় তিস্তার পানি দুটি চ্যানেলে প্রবাহিত হচ্ছে। এবার নদীর বাম তীরে বাঁধ নির্মাণের কাজ চলছে। বাঁধটি নির্মাণ শেষ হলে তিস্তা পুনরায় একটি চ্যানেলে ফিরে আসবে। মূল চ্যানেল কালীগঞ্জ জিরো পয়েন্ট ছাড়াও টেপাখড়িবাড়ী ও চরখড়িবাড়ী দিয়ে তিস্তা আরেকটি চ্যানেলে প্রবেশ করেছে।

এর পাশাপাশি তিস্তার ডানতীরের বাঁধের হার্ড পয়েন্ট ঘেঁষে প্রবাহিত হওয়ায় নজরদারিসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। উজানের ঢলের পরিস্থিতি সামাল দিতে তিস্তা ব্যারেজের ৪৪টি গেট খুলে রাখা হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিবার্হী প্রকৌশলী মোস্তাফিজার রহমান জানান, রোববার সকাল থেকে তিস্তার পানি বিপদসীমার ২৩ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। উজান থেকে আরও পানি ধেয়ে আসার কারণে চরাঞ্চলের মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

সবুজপাতা প্রতিবেদক

Comments