‘পলিথিনে মোড়ানো গরম খাবার খেলে ক্যানসার হতে পারে’

Print Friendly, PDF & Email

সবুজপাতা ডেস্ক, ০৩ জুলাই: সব ধরনের পলিথিন শপিং ব্যাগের উৎপাদন, আমদানি, বাজারজাতকরণ, বিক্রি, ব্যবহার আইনের মাধ্যমে নিষিদ্ধ হলেও তা বাস্তবায়নে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন পরিবেশবাদীরা। তারা বলেছেন, পলিথিন ও পলিথিনজাত সামগ্রীর ব্যাপক ও অপ্রয়োজনীয় ব্যবহার জনস্বাস্থ্য ও পরিবেশে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলছে।

আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক ব্যাগমুক্ত দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা) ও এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড সোশাল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশনের (এসডো) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে এ কথা বলা হয়।

বক্তারা বলেন, পলিথিনে মোড়ানো গরম খাবার খেলে ক্যানসার ও চর্মরোগের সংক্রমণ ঘটতে পারে। পলিথিনে মাছ-মাংস সংরক্ষণ করা হলে অবায়বীয় ব্যাকটেরিয়ার সৃষ্টি হয়, যা মাছ-মাংস দ্রুত পঁচনে সহায়তা করে।
image_88965_0পলিথিনের ক্ষতিকর দিকগুলো তুলে ধরে বক্তারা বলেন, পলিথিন ব্যাগ একটি অপচনশীল পদার্থ। একটি পলিথিন ব্যাগ প্রকৃতিতে মিশে যেতে সময় লাগে কয়েক শ বছর। একটি সমীক্ষা অনুযায়ী, ঢাকা শহরে একটি পরিবার প্রতিদিন গড়ে চারটি পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার করে। সে হিসাবে  প্রতিদিন এক কোটির বেশি পলিথিন ব্যাগ একবার ব্যবহার শেষে ফেলে দেয়া হয়। এগুলোর মাধ্যমে ড্রেন, নালা, খাল, ডোবা ইত্যাদি ভরাট হয়ে পানির প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হয় এবং সামান্য বৃষ্টিতেই জলাবদ্ধতার প্রকোপ বাড়িয়ে দেয়।

বক্তারা বলেন, রাজধানীসহ সারা দেশে প্রায় এক হাজার নিষিদ্ধ পলিথিন তৈরির কারখানা রয়েছে। এগুলোর বেশির ভাগ পুরান ঢাকাকেন্দ্রিক। ঢাকার পলিথিন ব্যবসা নিয়ন্ত্রণে একাধিক প্রভাবশালী সিন্ডিকেট রয়েছে। মিরপুর, কারওয়ান বাজার, তেজগাঁও, কামরাঙ্গীরচর ও টঙ্গীতে ছোট-বড় বেশ কিছু কারখানা রয়েছে।

পরিবেশ নিয়ন্ত্রণ আইন ও পরিবেশ আদালত আইনের কথা উল্লেখ করে বক্তারা তা বাস্তবায়নের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

নিজস্ব প্রতিবেদন

Comments