জলবায়ু ইস্যুতে সবাইকে একত্রে কাজ করার আহ্বান বান কি মুনের

Print Friendly, PDF & Email

সবুজপাতা ডেস্ক, ২১ সেপ্টেম্বর: পরিবেশ দূষণ রোধে দ্রুত ব্যবস্থা নানিলে পরিস্থিতি ক্রমশ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেনজাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন। এজন্য তিনি জলবায়ু ইস্যুতে সবাইকে একত্রেকাজ করার আহ্বান জানান। মঙ্গলবার থেকে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিতহতে যাওয়া জাতিসংঘ জলবায়ু সম্মেলনের আগে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেনজাতিসংঘ মহাসচিব। এদিকে এই সম্মেলনকে সামনে রেখে রোববার নিউইয়র্কে ‘পিপলসক্লাইমেট মার্চ’ নামে এক শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে। এতে এক লাখের বেশিমানুষের অংশ নেয়ার কথা আছে বলে জানিয়েছেন পরিবেশবাদীরা।

সম্প্রতি ভারত ও পাকিস্তানের কাশ্মির অঞ্চলে ভয়াবহ বন্যার ক্ষয়ক্ষতি গতকয়েক দশকের রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। একই পরিস্থিতি চীন, সার্বিয়াসহ বিভিন্নদেশে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় খরার কবলে পড়েছে ফসলি জমি।গত কয়েক দশকে আবহাওয়া এতটা বিরূপ হয়নি কখনও। এদিকে, কানসাসসহ বিভিন্নঅঙ্গরাজ্যে বারবার আঘাত হানছে ঝড় ও টর্নেডো। এসব প্রাকৃতিক দুর্যোগকেআবহাওয়া পরিবর্তনের ফল হিসেবে বর্ণনা করে এর জন্য শিল্পোন্নত দেশগুলোরকার্বণ নিঃসরণের হার বেড়ে যাওয়াকে দায়ী করছেন পরিবেশবিদরা।

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট সমস্যা কমিয়ে আনার জন্য ২০০৯ সালে ডেনমার্কেরকোপেনহেগেনে প্রথম জলবায়ু সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এর পর আরও কানকুন, দোহাসহআরও কয়েক দফা এমন সম্মেলন হলেও পরিবেশবাদীদের মতে সেসব সম্মেলন জলবায়ুপরিবর্তনের ফলে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে গালভরা বুলি ছাড়া তেমন কিছুদিতে পারেনি।

এই প্রেক্ষাপটেই নতুন প্রত্যাশা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘসদর দপ্তরে হতে যাচ্ছে এবারের জলবায়ু সম্মেলন। সম্মেলনকে সামনে রেখে পরিবেশদূষণ ও জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যুতে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানানজাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন।

_77721881_77721880বান কি মুন বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন রোধে ব্যবস্থা নিতে আমরা যতো দেরি করবোক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে তত বেশি ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। এজন্য আমি দেশ, ধর্ম, গোত্র, নির্বিশেষে সবাইকে এক হওয়ার আহ্বান জানাই। আপনাদের নেতৃত্ব ও মতামতসবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

বান কি মুনের সঙ্গে একই মঞ্চে যোগ দেন হলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা লিওনার্দো দ্য ক্যাপ্রিও।

লিওনার্দো দ্য ক্যাপ্রিও বলেন, এটা কোন সহজ কাজ নয়। সচেতন মানুষ হিসেবেআমাদের প্রত্যেকের জলবায়ু ইস্যুতে আওয়াজ তুলতে হবে। এজন্য প্রয়োজন বড়আন্দোলন। আমি সেইসব তারকা, রাজনীতিবিদ ও ব্যবসায়ি নেতাদের ধন্যবাদ জানাইযারা বৈশ্বিক উষ্ণতা রোধে সোচ্চার হয়েছেন।

এদিকে নিউইয়র্কের এই জলবায়ু সম্মেলনকে সামনে রেখে পরিবেশবাদী সংগঠন, আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থাসহ প্রায় ৫ শতাধিক সংগঠন নিউইয়র্কের কলম্বাসসার্কেল থেকে প্রায় ১ লাখ মানুষের অংশগ্রহণে ইতিহাসের অন্যতম বৃহতশোভাযাত্রা বের করার উদ্যোগ নিয়েছে। এই শোভাযাত্রার সমর্থনে শনিবারঅস্ট্রেলিয়া, ভারত সহ বিভিন্ন দেশে সমাবেশে মিলিত হয় অসংখ্য মানুষ।

 

Comments