ইলিশ না ধরার ১১ দিন : ১১ জেলে সহ প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকার জাল আটক

Ilish.jpg

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:
ইলিশ শিকারে সরকারি নিষেধাজ্ঞা চলাকলীন সময়ে ১১ দিনে পটুয়াখালী জেলায় প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকার কারেন্ট জালসহ বিভিন্ন জাল আটক করে পুড়িয়ে ফেলেছে জেলা মৎস্য অফিস। এছাড়া ভোলায় ইলিশ প্রজনন মৌসুমের ১১ দিনে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মেঘনা ও তেতুলিয়া নদীতে মাছ ধরার অপরাধে দুইশ ১১ জেলেকে আটক করা হয়েছে। ১৩ অক্টোবর থেকে ২৩ অক্টোবর পর্যন্ত এ অভিযান চালানো হয়।
ওই ১১ দিনে জেলা মৎস্য অফিস ৩২৮টি অভিযান চালিয়ে ৬২টি মামলা দায়ের করেছে। যার মধ্যে ভ্রাম্যামাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা আদায় করা হয়েছে এক লাখ ৪০ হাজার টাকা। এসময় দুই দশমিক ৭টন ইলিশ মাছ আটক করে বিভিন্ন এতিমখানায় বিলিয়ে দেওয়া হয়েছে। একই সময়ে ৩০ জন জেলেকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়ে জেলে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ১০ লাখ ১৮ হাজার মিটার বিভিন্ন প্রকারের জাল আটক করা হয়। যার মূল্য তিন কোটি ২৪ লাখ টাকা।
hilsa_0
ইলিশ প্রজনন সময়ে এ ধর-পাকড় গতবারের তুলনায় কম। গতবার প্রায় চার কোটি টাকার কারেন্ট জাল এবং পাঁচ টন ইলিশ আটক করা হয়েছিল। জনবল কম হ্ওয়ার কারণ ছাড়া্ও জেলে মাঝিদের মধ্যে সচেতনতা আর ভীতি দুটোই বেড়েছে বলে এ হার কম বলে জানিয়েছেন মৎস কর্মকর্তারা।
মৎস্য আড়তদার সমিতি, মৎস্যজীবি এবং স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলাপ করে ধারণা করা হচ্ছে, এখন পর্যন্ত সাগর বা বিভিন্ন মোহনাতে প্রায় ৭০% ডিম ছেড়েছে মা ইলিশ।
আটক আর পুরো ১১ দিনের কর্মকান্ড নিয়ে, বৃহস্পতিবার দুপুরে ভোলা শহরের খেয়াঘাট রোড এলাকার কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোন অফিসে এক সংবাদ সম্মেলনে কোস্টগার্ড এ তথ্য জানায়।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, মা ইলিশ রক্ষা অভিযানের ১১ দিনে আট হাজার নয়শ ৭২ কেজি ইলিশ ও
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের অপারেশন অফিসার লে. রাকিব উল হাসান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top