মাটির জীবন শক্তি ফিরিয়ে দিবে ট্রাইকোডার্মা : তৈরি হচ্ছে বগুড়ার আরডিএ রসায়নাগারে

1239302_330152283795012_683822059_o.jpg

সবুজপাতা ডেস্ক: প্রকৃতির সব পচনশীল বস্তুকে মাটিতে মিশিয়ে পৃথিবীকে বাসযোগ্য করে রাখছে যে অনুজীব- বিজ্ঞানীরা তা আবিষ্কার করেছেন।

বায়োটেকনোলজির সাহায্যে প্রকৃতিতে এতদিন লুকিয়ে থাকা ‘ট্রাইকোডার্মা’ নামের সেই বন্ধু ছত্রাক অনুজীব এখন তৈরি হচ্ছে বগুড়া পল্লী উন্নয়ন একাডেমীর (আরডিএ) রসায়নাগারে।

আরডিএর কৃষি বিভাগের পরিচালক একেএম জাকারিয়া জানান, মাত্র ২৫ টাকায় আধা লিটার ট্রাইকোডার্মা অনুজীব (বা ছত্রাক) দিয়ে অন্তত ১০০ কেজি উন্নত জৈব সার প্রস্তুত করা যাবে। প্রতি শতাংশ জমিতে মাত্র ৫ কেজি করে জৈব সার প্রয়োগে রাসায়নিক সারের সাশ্রয় করবে ৩০ শতাংশেরও বেশি। মাটিতে জৈব পদার্থের পরিমাণ কয়েক গুণ বাড়িয়ে জমি সর্বোচ্চ উর্বরা শক্তিতে পরিণত হবে।

কৃষি বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, দেশের আবাদী জমি থেকে জৈব পদার্থের হার কমে গিয়ে বর্তমানে এক শতাংশে ঠেকেছে, যেখানে থাকার কথা অন্তত ৫ শতাংশ। প্রকৃতিতে মাটির জীবন্ত ধরন এ রকম- বাতাস ২৫ শতাংশ, পানি ২৫ শতাংশ, কোদাল দিয়ে কোপানো মাটি ৪৫ শতাংশ বাকি ৫ শতাংশ জৈব পদার্থ। যে মাটিতে জৈব পদার্থ নেই, তা মৃত। এ অবস্থার উত্তরণে অণুজীব ‘ট্রাইকোডার্মা’ জরুরী হয়ে পড়েছে। এ লক্ষ্যেই কাজ করছে আরডিএ।

ইতোমধ্যে বগুড়া, জয়পুরহাট, গাইবান্ধা, নওগাঁ ও সিরাজগঞ্জের অনেক কৃষক এ অণুজীব ব্যবহারে জমির জৈব পদার্থের হার বাড়িয়েছেন এবং তাদের ফসলের উৎপাদন বেড়েছে। তাঁরা রাসায়নিক সার ইউরিয়া (নাইট্রোজেন) এবং নন ইউরিয়া সার মিউরেট অব পটাশ (এমওপি), ডায় এ্যাসোনিয়াম ফসফেট (ড্যাপ), ট্রিপল সুপার ফসফেট (টিএসপি) ইত্যাদির ব্যবহার কমিয়ে দিয়েছেন।

সবুজপাতা ডেস্ক

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top