আজ থেকে শুরু জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ ২০১৫

jatka_32890.jpg

ঢাকা, ১ এপ্রিলঃ ইলিশের পরিমাণ বাড়াতে ও  জাটকা সংরক্ষণে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে আজ বুধবার থেকে আগামী বুধবার  (১-৭ এপ্রিল) পর্যন্ত চলবে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ ২০১৫ । এবারের স্লোগান হিসেবে নেয়া হয়েছে “ জাটকা মাছ রক্ষা করি, ইলিশ সম্পদ বৃদ্ধি করি” ।

জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ উদযাপনে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে প্রথম দিন ১ এপ্রিল বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হবে। দ্বিতীয় দিন ট্রাকযোগে ঢাকা শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বিশেষ ঘাট, আড়ত ও মাছ বাজারে জাটকা সংরক্ষণ আইন সম্পর্কে প্রচার এবং ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা আকতারুল ইসলাম জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহের কর্মসূচির এই তথ্য জানান।

 তিনি জানান, জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহের তৃতীয় দিন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এবং সন্ধ্যায় ঢাকা শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ভিডিও চিত্র প্রর্দশনী হবে।

চতুর্থদিন চাঁদপুর অঞ্চলের জনপ্রতিনিধিগনের সঙ্গে মতবিনিময় ও সংবাদ সম্মেলন এবং একইদিন বাংলাদেশ টেলিভিশন এবং বাংলাদেশ বেতারে জাটকা সংরক্ষণ বিষয়ক আলোচনা অনুষ্ঠান প্রচার করা হবে।

পঞ্চমদিনে চাঁদপুরে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন এবং মেঘনা নদীর মূলহেড থেকে হরিনা পর্যন্ত নৌ-র‌্যালী হবে। ৬ষ্ঠ দিন মৎস্য অধিদপ্তরে জাটকা সংরক্ষণ প্রকল্পের কার্যক্রম বাস্তবায়নের অগ্রগতি উপস্থাপন এবং ইলিশ বিষয়ক কর্মশালার আয়োজন হবে। কর্মসূচির সপ্তম দিন ইলিশ গবেষণা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া কেন্দ্রীয় কর্মসুচির অংশ হিসেবে ১৫ এপ্রিল বরিশাল অঞ্চলের জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময় এবং ১৬ এপ্রিল বরিশালে নৌর‌্যালী অনুষ্ঠিত হবে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ইলিশের উৎপাদন ক্রমেই বাড়ছে। ২০১৩-‘১৪ অর্থবছরে ইলিশের উৎপাদন ৩.৮৫ লাখ মেট্রিক টনে উন্নীত হয়েছে। জাটকা আহরণকারী জেলেদের বিকল্প কর্মসংস্থান ও তাদের ভিজিএফ কর্মসূচির আওতায় আনার পরিমাণ বাড়ানোয় এই সফলতা অর্জিত হয়েছে।

দেশে এখন যে পরিমাণ মাছ উৎপাদিত হচ্ছে তার অন্তত ১০ ভাগ ইলিশ। মৎস সম্পদ হিসাবে জাতীয় আয়ের একভাগ আসে ইলিশ থেকে। তবে প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট নানা কারণে ইলিশের প্রজনন ও বিচরণ বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। প্রতিবন্ধকতার মধ্যে অতিমাত্রায় ডিমওয়ালা ইলিশ আহরণ, কারেন্ট জালের ব্যবহার, নৌকার যান্ত্রিকায়নসহ জাটকা নিধন অন্যতম।

পাশাপাশি জাটকা রক্ষা ও ইলিশ সম্পদ ব্যবস্থাপনার গুরুত্ব সম্পর্কে জেলে সম্প্রদায়, মৎস্যজীবী, ইলিশ ব্যবসায়ী, ডিপো ও বরফ কল মালিক, বোট মালিক, আড়তদার এবং সংশ্লিষ্ট সকলের মধ্যে জনসচেতনতা সৃষ্টির উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহে সরকার এ ব্যাপারে জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়েছে।

সবুজপাতা প্রতিবেদন

scroll to top