কোমল পানীয় খেয়ে প্রতি বছর মারা যান লাখেরও বেশি

csd_2.jpg

csd_2শপিং করতে বেরিয়ে ঘুরতে ঘুরতে গলা শুকিয়ে কাঠ। ঝপ করে দোকান থেকে কোমল পানীয় কিনে ঢকঢক করে খেলে ফেললেন। আরে পিৎজার সঙ্গে কোল্ড ড্রিঙ্কস ছাড়া চলে না কি!
মন কিছুতেই মানতে না চাইলেও এবার কোল্ড ড্রিঙ্কসকে যত তাড়াতাড়ি এক্জিট ডোর দেখাবেন তত বেশি আয়ু হবে আপনার। অন্তত এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞেরা। একটি গবেষণায় জানা গিয়েছে সারা পৃথিবীতে কম পক্ষে ১ লাখ ৮০ হাজার মানুষ মারা যান নিয়মিত কোমল পানীয় খাওয়ার জন্যে। সম্প্রতি আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনস্ এপিডেমিওলজি অ্যান্ড প্রিভেনশন/নিউট্রিশন, ফিজিকাল অ্যাক্টিভিটি অ্যান্ড মেটাবলিজম ২০১৩ সাইন্টিফিক সেশনে পেশ করা একটি স্টাডি রিপোর্ট অনুযায়ী সিন্থেটিক কোমল পানীয় খাওয়ার ফলে ওজন বে়ড়ে যাচ্ছে। এর ফলে দেখা দিচ্ছে ডায়াবিটিস, হৃদরোগ এবং বেশ কয়েক রকম ক্যান্সার। এই স্টাডি রিপোর্ট অনুযায়ী নিয়মিত কোমল পানীয় খাওয়ার ফলে ডায়াবিটিসে মারা গিয়েছেন এক লাখ ৩৩ হাজার মানুষ, হৃদরোগে মারা গিয়েছেন ৪৪ হাজার এবং ক্যান্সারে মারা গিয়েছেন প্রায় ছয় হাজার।
লাতিন আমেরিকা এবং ক্যারেবিয়ানে ডায়াবিটিসে মৃত্যু হয়েছে ৩৮ হাজারের, পূর্ব ও মধ্য ইউরেশিয়ায় হৃদরোগে মারা গিয়েছেন প্রায় ১১ হাজার। পৃথিবীর ১৫টি জনবহুল দেশের মধ্যে মেক্সিকোতে অত্যধিক পরিমাণে কোমল পানীয় খাওয়ার ফলে মৃত্যুর হার সব থেকে বেশি। প্রতি লাখে প্রায় ৩২ জন মানুষ প্রতি বছর মারা যান অত্যধিক কোমল পানীয় খাওয়ার জন্যে। তবে জাপানে এই সংখ্যা বেশ কম। প্রতি এক লাখে সেখানে মৃত্যু হার দশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top