১৫ নভেম্বর তরুণ সম্মেলন,সাথে ৫ মন্ত্রনালয়

10522006_678772228860367_7933795898166360526_n.jpg

ঢাকা: ৭ আগষ্ট:  আগামী ১৫ই নভেম্বর ঢাকায় ২ দিনের একটি তরুন সম্মিলন (Youth Summit-2014) আয়োজিত হবে। প্রয়াত সাবেক মন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাকের পুত্র সংসদ সদস্য নাসিম রাজ্জাকের তত্বাবধায়নে এই তরুনদের মেধা কাজে লাগানো আর তাদের সহায়তা করার জন্য কাজ করছে ইয়াংবালা নামের একটি সংগঠন। এই সংগঠনের সাথে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়, আইসিটি মন্ত্রনালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়, শিক্ষা মন্ত্রনালয় এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রনালয় সম্পৃক্ত রয়েছে।

গতকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে দেশের প্রায় সকল তরুন সংগঠনকে দা্ওয়াত দিয়ে নভেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য সেই সামিটের প্রস্তুতি আর ধারণাপর্ব বিনিময় অনুষ্টিত হয়। সেখানে  তারা জানান, দেশের ৬৫ ভাগ জনগোষ্টীই তরুন। দেশের আগামীকে পরিবর্তন করতে মূল ভরসা তারুন্যেই। সবুজপাতার সেচ্ছাসেবী সংগঠন-ভলান্টিয়ার ফর গ্রীন এর ২জন সদস্য সবুজ আন্দোলনের প্রতিনিধিত্ব করেছেন সেখানে।

cover_ss 1

উদ্যোক্তারা ২০২১ সালের ভিশন বাস্তবায়ন আর স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে তরুনদের কিছু দিক নির্দেশনা দিতে চান।সহযোগীতা করতে চান এগিয়ে যাবার জন্য।

আগামী ১৫ই নভেম্বরথেকে শুরু হওয়া দুই দিন ব্যাপি ইয়ুথ সামিট ২০১৪ কে সফল করতে এবং ভিশন-২০২১ কে বাস্তবে রুপ দিতে জুনিয়রস সেম্বার ইন্টারন্যাশনাল(JCI), ইউনাইটেড ন্যাশন স্টুডেন্ট (UNSA) বাংলাদেশ, ইন্জিনিয়ারিং স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ(ESB), বাংলাদেশ ডিবেট ফেডারেশন, সেন্টার ফর রিসার্চ এবং আর্থ এর সদস্যরা কাজ করছে।

এই সংগঠনের অধীনে দেশের ৬৪ টি জেলার তরুণদেরকে জাতীয় সংসদের নীতিমালা প্রণয়নে পরামর্শ গ্রহনে সম্পৃক্ত করা হবে। এছাড়া প্রত্যন্ত অঞ্চলের পিছিয়ে পড়া মেধাবী তরুণ উদ্দ্যেক্তাদেরকে বিনিয়োগকারীদের সাথে সেতুবন্ধন তৈরীতে ইয়াংবাংলা অগ্রণী ভ’মিকা পালন করবে বলে জানান বক্তারা। পাশাপাশি এই সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রতিবছর বিশেষ কৃতিত্ত্বের জন্য দশটি ক্যাটাগরিতে তিনজন করে সর্বমোট ত্রিশজনকে জয় বাংলা ইয়ুথ এ্যওয়ার্ড প্রদান করা হবে।

এই মতবিনিময় সভায় ইয়াং বাংলা সংগঠনের নেতারা বলেন, প্রতিটি জেলা, উপজেলা, ও গ্রাম পর্যায়ে এর কার্যক্রম সম্প্রসারন করা হবে। যারা নানা প্রতিকূলতার কারনে নিজেদের সুপ্ত প্রতিভা বিকাশ করতে পারছেনা তাদেরকে সর্বাধিক সহযোগিতা করা হবে। এ সময় নেতারা ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি সমৃদ্ধশালী রাষ্ট্র হিসেবে গড়ার লক্ষ্যে দেশের সকল যুব-সংগঠনগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

ইয়ুথ সামিট ২০১৪ কে সফল করতে সংগঠনের তরফে আমন্ত্রন জানানো হয় সবুজপাতাকে। সবুজপাতার সেচ্ছাসেবী হিসেবে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ জন শির্ক্ষার্থী সেখানে অংশ নেন, এবং তারুন্যের উদ্যোগ সম্প্রসারণে সকল ধরনের সহযোগীতা আশ্বাস দেয়া হয়। এ সময় সবুজপাতার প্রতিনিধিরা বলেন, দেশের বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর সর্বোচ্চ সংখ্যক তরুণদের নিয়ে গঠিত সংগঠন ভলান্টিয়ার ফর গ্রীন(Volunteer For Green) সবসময় সকল শুভ এবং পরিবেশ সুরক্ষাকারী উদ্যোগে কাজ করবে।

সবুজপাতা ছাড়াও মতবিনিময় সভায় অংশগ্রহন করেন দেশের ছোট-বড় প্রায় দেড়শ সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

আবু নোমান

শিক্ষার্থী, ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়

scroll to top