ভ্রাম্যমান নার্সারী এবং বৃক্ষ ক্লিনিক একটি অনন্য উদ্যোগ-আহসান রনি

563568_497067640315995_369904989_n.jpg

প্রায় ৩ বছর আগে যাত্রা শুরু হয় পরিবেশ বান্ধব সামাজিক সংগঠন গ্রিন সেভার্স এর।যার সদস্যরা প্রায় বিনা খরচে বাসার সামনে-ভেতরে, বারান্দায় কিংবা ছাদে বাগান করা ও রক্ষণাবেক্ষণের পরামর্শ দিয়ে ঢাকাকে একটি আদর্শ বাসযোগ্য শহর হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, শের-এ-বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কজন শিক্ষার্থী গড়ে তুলেছেন গ্রিন সেভার্স।

সবুজ বাচাঁনোর কৌশলে এগিয়ে থাকা বেশ কিছু পদক্ষেপের সাথে এবার সংগঠনটি নতুন একটি মাত্রা যোগ করছে ভ্রাম্যমান নার্সারী আর গাছের পরিচর্যা শিক্ষা দেবার জন্য ঈদের দিন থেকেই ঢাকার রাস্তায় ভ্রাম্যমান নার্সারী আর গাছের সেবা দেবার ক্লিনিক নামাতে যাচ্ছে তারা। এই উদ্যোগটি নিয়ে কথা হচ্ছিল গ্রিন সের্ভাস এর সভাপতি আহসান রনির সাথে।

Green Savers

প্রশ্ন: কি ধরনের বাহন আসছে নতুন এই সবুজ উদ্যোগে?

উত্তর: এটা অনেকটা ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরীর মতই।বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের ভ্রাম্যমান যে লাইব্রেরী সেখানে মানুষকে পাঠ্যাভাসের মধ্য আনতে যেমন বই থাকে, এবং সেটি একটি সফল উদ্যোগ হিসেবে বিবেচিত আমাদের কাছে। আমরা সেই অনুপ্রেরণায় গাছের প্রতি আকর্ষন আর মমত্ববোধ সৃষ্টি মাঠে নামাতে যাচ্ছি এই ভ্রাম্যমান নার্সারী আর মোবাইল ক্লিনিক।

 প্রশ্ন: কারা এই ভ্রাম্যমান নার্সারী এবং ক্লিনিকের সুবিধা পাবে?

উত্তর: মূলত শহরবাসী যারা, সখের বসে গাছ প্রতিপালন করেন তারাই আমাদের এই সেবার প্রাথমিক টার্গেট।যেমন ধরুন একজন বারান্দায় মরিচ গাছের চাষ করেন, তার গাছগুলো কি ভাবে পরিচর্যা করতে হবে সে বিষয়ে আমাদের পরামর্শ পাবেন। আবার ধরুন, কারো বাগানে পোকার আক্রমনে গাছ ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে, সেখানে হয়তো কোন এটি স্প্রে-র মাধ্যমে কীটনাশক দরকার। তাকে পুরো কীটনাশক ক্রয় করতে হবে না,সামান্য ১০/২০ টাকা খরচে আমাদের কর্মীরাই তার গাছের প্রয়োজনীয় ঔষধ দিয়ে আসবে।

প্রশ্ন: কিভাবে সম্পাদিত হবে এ কাজ?

উত্তর: প্রতি দিন এলাকা ভিত্তিক কাজ করবে আমাদের ভ্রাম্যমান নার্সারি আর ক্লিনিক। এখানে বাচ্চাদের আকৃষ্ট করে এমন ছোট ছোট টবের গাছ থাকবে বিক্রির জন্য। আমরা চাই একদম ছোট শিশুদের যেন গাছের সাথে সম্পর্ক বাড়ে। আমরা তাই তাদের কাছে পৌছানোর সব রকম চেষ্টা করছি।

আর ভ্রাম্যমান ক্লিনিকে থাকবেন একজন করে কৃষিবিদ অথবা খামার বিশেষজ্ঞ। যারা কিনা গাছের পরিচর্যা সর্ম্পকে সুচিন্তত পরামর্শ দিতে পারবেন।

আমরা এলাকা ভিত্তিক ভ্রমনের পাশাপাশি বিভিন্ন স্কুলের সামনে যেখান বাচ্চাদের মায়েরা অপেক্ষা করেন সেখানেও এই নার্সারির সুবিধা পৌছানোর পরিকল্পনা করছি।

 প্রশ্ন: কবে থেকে মাথায় এলো এ পরিকল্পনা আর কার সহযোগীতায় শুরু করতে যাচ্ছেন ভিন্ন এ উদ্যোগ?

উত্তর: আমরা প্রায় দেড় বছর যাবত এই ভ্রাম্যমান লাইব্রেরীর ধারণা নিয়ে মাঠে কাজ করছি। গত ৬ মাস ধরে আমরা ট্রলি ভ্যানে করে করে এই সেবা দেবার চেষ্টা করেছি পাইলট প্রকল্পের মাধ্যমে। আমরা বেশ সাড়া পাবার পরই এমন একটি যান্ত্রিক ভ্যানে করে নার্সারী আর বৃক্ষ ক্লিনিক এর ধারনা নিয়ে মাঠে নামি।

অশেষ কৃতজ্ঞতা বাংলাদেশ গ্রামীন টেলিকম ট্রাস্টকে তারা এই ভ্যান রাস্তায় নামানোর জন্য আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন। এই প্রকল্পে সহযোগীতা করার জন্য পরিবেশ অধিদপ্তর কে ধন্যবাদ। আর শের ই বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েক জন শিক্ষক যারা আমাদের প্রতিনিয়ত সাহস যোগাচ্ছেন, সাথে থেকে সবুজ বাচানোর কাজ কে এগিয়ে নিচ্ছেন।

10394489_697727933596107_6347671611416114599_n

প্রশ্ন: আগামি দিনের পরিকল্পনা কি?

উত্তর: ৩ টা পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছি। একটি হলো অক্সিজেন ব্যাংক। এই ব্যাংকের ধারণা হলো  স্কুলের বাচ্চারা তাদের টিফিনের পয়সা থেকে জমানো একটু একটু টাকার মাধ্যমে স্কুলেই বাগান তৈরী করা। বাচ্চাদের জমানো পয়সা দিয়ে স্কুলে স্কুলে গার্ডেন হবে। এর মধ্যেভিকারুননিসা নূন, উইলস লিটল ফ্লাওয়ার, ফাউন্ডেশন স্কুল ও লেক সার্কাস স্কুলসহ ঢাকার কয়েকটা স্কুলে আমরা এই কার্যক্রম শুরু করেছি।  আমরা আশা করি ২০১৫ সালের মধ্যই সব স্কুল হবে।এটাতে ইপিলিয়ন গ্রুপ সার্বিক ভাবে আমাদের সাহায্য করছে।

আরেকটি হলো, ঢাকার জায়গার নাম অনুসারে সেখানে সেই প্রজাতির গাছের আধিক্য বাড়ানো। কলাবাগানে কলা গাছের বাগান করবো,-কাঠাল বাগানে কাঠাল গাছ- সেগুন বাগিচায় সেগুন গাছে-শ‍্যা্ওড়াপাড়ায় শ্যা্ওড়াগাছ-কমলাপুরে কমলাগাছ-গাবতলীতে গাব গাছ এভাবে ঢাকার জায়গার নামের ঐতিহ্য আমরা ফিরিয়ে আনবো।

আর বর্তমানে যেটা আছে সেটাকে আরো এগিয়ে নিতে চাই। যেমন রিসাইক্লিং এর পরিকল্পনায় আমরা নবায়ন যোগ্য ব্যবহার বাড়াচ্ছি। ব্যাবহার করা বোতল, প্লাস্টিক পাত্রে আমরা গাছের চারা রোপন করছি আর সেগুলির ব্যাবহার ছড়িয়ে দেবার চেষ্টা করছি। ফেলে দেওয়া প্লাস্টিকের বোতল, চিপসের প্যাকেট কিংবা প্লাস্টিকের পাইপকেটব হিসেবে ব্যবহার করে সেখানে আপনি গাছ লাগাতে পারেন।এই কাজটি খুব সহজে আধুনিক ও বিজ্ঞানসম্মত কৃষিপ্রযুক্তি ব্যবহার করে এ কাজে আপনাকে সহযোগিতা করবে ‘গ্রিনসেভার্স’।

আপনাকে ধন্যবাদ

কথোপকথন: সাহেদ আলম

scroll to top