জা.বি তে পাখির সাথে সখ্য; ৭ ফেব্রুয়ারী

Pakhi-34.jpg

“নগরে পাখিরও আবাস চাই’

ঢাকা:   প্রতি শীতে জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ে বসে অতিথি পাখির ঝাক। শুধু জাহাঙ্গীর নগর কেন? সিলেটের হা্ওর এলাকা অথবা ভোলার চর এলাকা সহ আনাচে কানাচে এসময় প্রচুর পাখির দেখা মেলে। এরা অতিথি পাখি । এক সময় অতিথি পাখি দেদারসে শিকার করতো শিকারীরা। মোটা দামে রাজপথে বিক্রি করতেও দেখা যেত। এখন তেমনটি প্রকাশ্যে হয়কি ঢাকায়? ঢাকায় না হলেও গ্রাম আর ছোট শহরগুলিতে তো এখনো কোথাও কোথাও দেখা যায় অতিথি পাখির বিক্রি। তবে মানুষের সচেতনতা আর নানা মুখি প্রচারণায় সেটা কমেছ বহুগুনে। এটাই হলো প্রকৃতির প্রতি দায়বোধ মানুষের।

Siberian Cranes

কিন্তু শুধু অতিথি পাখি কেন? আমাদের দেশীয় পাখিদের অবাধ দর্শন কতটুকু দেখা যায় ইট পাথরের শহরে? শুধু ডাস্টবিনের আশে -পাশে কাক গুলোর বিচরণ-ই বলে দেয় নগর দেশীয় অন্যণ্য পাখিদের বসবাসরে জন্য সঙ্কুচিত হয়ে যাচ্ছে  এই শহর একটু একটু করে।

এক যুগ আগেও সাভার, কেরানীগঞ্জ, গাজীপুর, মুন্সিগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জের ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ জমি ছিল সবুজে ঢাকা, ছিল নদী ও জলাশয়। নগরায়ন ও উন্নয়নের নামে এলাকাগুলো ধূসরপ্রায় এখন।  ঢাকা মহানগরের ৩৫৩ বর্গকিলোমিটার এলাকার মধ্যে বৃক্ষ আচ্ছাদিত এলাকার পরিমাণ মাত্র ৩৫ বর্গকিলোমিটার, এক যুগ আগে যা ছিল প্রায় ৮০ বর্গকিলোমিটার। আর জলাভূমির পরিমাণ ৭০ বর্গকিলোমিটার, এক যুগ আগেও  যা ছিল ১০০ কিলোমিটারের বেশি।  এর সাথে ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে ঢাকার জীববৈচিত্র সমৃদ্ধ ৪৭ খাল।

নগরে এভাবে সবুজ আর জলাশয় বিলুপ্ত হতে থাকলে পাখি বসবে কোথায়? আমরা কি পাখি বিহীন এক নগর চাই? আমরা কি প্রকৃতিহীন এক কীটের বাসিন্দা হতে চাই? না। আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের জন্য পরিকল্পিত নগরায়ন চাই। যেখানে একসাথে বেড়ে উঠবে মানুষ আর প্রকৃতির আগামী প্রজন্ম।

52828b8ee26ea-Untitled-7

এবস দাবী জোর করে বলার সময় এখন।হোক না শুরু অতিথি পাখির প্রতি ভালোবাসা থেকেই। সবুজপাতা-যেটি কিন উন্নয়নে সবুজের প্রাধ্যান্যের দাবীকে সাথে নিয়ে নানা রকম প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছে তাদের উদ্যোগে আগামী শুক্রুবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, জাহাঙ্গীর নগর ক্যাম্পসে গিয়ে “নগরে পাখিরও আবাস চাই’ ব্যানারে ঢাকার সবুজায়ন আর জলাশয় রক্ষার দাবী জোরালো করবে। ঐদিন বাংলাদেশ বার্ড ক্লাব আর প্রানীবিদ্যা বিভাগের আয়োজনে ১৩ তম পাখি মেলার ও আয়োজন আছে।

 ‘পাখ-পাখালি দেশের রত্ন, আসুন করি সবাই যত্ন’ এ স্লোগানকে ধারন করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে দিনব্যাপী ‘পাখি মেলা-২০১৪’ আয়োজন করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের জহির রায়হান মিলনায়তনে সকাল ৯ টায় এ মেলার উদ্বোধন করা হবে।

দিনব্যাপী এ মেলায় থাকবে আন্ত:বিশ্ববিদ্যালয় পাখি দেখা প্রতিযোগীতা, পাখির আলোকচিত্র ও পত্র-পত্রিকা প্রদর্শনী, শিশু-কিশোরদের জন্য পাখির ছবি আঁকা প্রতিযোগিতা ও টেলিস্কোপে শিশু-কিশোরদের পাখি পর্যবেক্ষণ, কুইজ প্রতিযোগিতা এবং সর্বশেষ পুরুস্কার বিতরণীর অনুষ্ঠান।

নিজস্ব প্রতিবেদন

সবুজপাতা/নি/রি/ঢা

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top