Homeসবুজ সংবাদচট্টগ্রাম এখন পানিগ্রাম!

চট্টগ্রাম এখন পানিগ্রাম!

চট্টগ্রাম; ২২ জুন: বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে ভারী বৃষ্টির পর শুক্র ও শনিবারও বৃষ্টি হয়েছে। রোববার ভোর থেকে আবার শুরু হয়েছে টানা বর্ষণ। ফলে নতুন করে নগরীর বিভিন্ন এলাকা পানিতে তলিয়ে গেছে।নগরীর প্রায় সব রুটে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় নগরবাসীর ভরসা এখন রিকশা, অটোরিকশা, ভ্যান ও টেম্পো। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বাসাবাড়ি, বাজার সব জায়গায় এখন হাঁটু থেকে কোমর সমান পানি। সবমিলিয়ে চট্টগ্রাম নগরীতে জনদুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে।

অতি বৃষ্টির ফলে নগরীর বহদ্দারহাট, মুরাদপুর, চাঁদগাও, বাকলিয়া, হালিশহর বড়পোল, ছোটপোল, নয়াবাজার, বিশ্বরোড, ইপিজেড, পতেঙ্গা সল্টগোলা, মাইলের মাথা, মোহরা, অক্সিজেন, ষোলশহর, দুই নম্বর গেইট, চকবাজার, কাতালগঞ্জ, পাহাড়তলী, সাগরিকাসহ অসংখ্য এলাকায় কোথাও হাঁটু সমান, কোথাও কোথাও কোমর সমান পানিতে ডুবে গেছে। ফলে এসব এলাকার বেশ কিছু সড়কে সকাল থেকে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

155481_259506734236268_1099209335468622047_n

রাত থেকে টানা বৃষ্টির কারণে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন নগরবাসী। সকাল থেকে অফিস আদালত, স্কুল-কলেজসহ কর্মস্থলে যেতে ভোগান্তিতে পড়েন অনেকে। বাসাবাড়ি ও বিভিন্ন কারখানাতে পানি উঠায় সিইপিজেড পতেঙ্গার অনেক শিল্প কারখানায় ছুটি দেয়া হয়েছে। পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তা সন্দ্বীপ হোসেন জানান, শুক্রবার দুপুর ১২টা থেকে আজ শনিবার ১২টা পর্যন্ত ২১৬ দশমিক ৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। মৌসুমি বায়ু সক্রিয় হওয়ায় এ ধরনের ভারী বৃষ্টিপাত আরো কয়েকদিন অব্যাহত থাকতে পারে। চট্টগ্রামের উপকূলীয় এলাকায় ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি জানান।

নগরীর আগ্রাবাদ ট এলাকার বাসিন্দা রুহুল মতিন সবুজপাতার এ প্রতিবেদক কে ফোন করে আক্ষেপ করে বলেন, ভাই সিটি কর্পোরেশন মেয়র নির্বাচনে জলাবদ্ধতা দুর করার আশ্বাস পেয়েছিলাম। কিন্তু  দুদিন ধরে পানি বন্দি অবস্থায় আছি। কোমর সমান পানিতে ডুবে আছে পুরো এলাকা।   কোথাও যাওয়ার সুযোগ নেই। এলাকার প্রতিটি ফ্লাটের নিচ তলা ডুবে গেছে।  আগ্রাবাদ পোর্ট কানেক্টিং সড়কে সকাল থেকে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ আছে। পতেঙ্গা, কাটগড়  স্টিল মিলস এলাকায় বৃষ্টির পানিতে ডুবে স্থানীয় ৩ ওয়ার্ড কাউন্সিলের বাড়িসহ শত শত বাড়িঘর। চট্টগ্রাম এখন প্রায় পানিগ্রাম বলা চলে।

সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনজুর আলম জানান, তিন দিন ধরে টানা বৃষ্টি হচ্ছে। পানি টানতে পারছে না। ২০ কিলোমিটারের উপরে বৃষ্টি হলে জলাবদ্ধতা রোধ করা সম্ভব হয় না।

নিজস্ব প্রতিবেদন

No comments

Sorry, the comment form is closed at this time.