Homeসবুজ ভ্রমনউত্তাল সমুদ্রঃশতাধিক পর্যটক আটকা পড়েছেন সেন্ট মার্টিনে

উত্তাল সমুদ্রঃশতাধিক পর্যটক আটকা পড়েছেন সেন্ট মার্টিনে

সবুজপাতা ডেস্ক, ৯ অক্টোবরঃ  প্রবাল দ্বীপ সেন্ট মার্টিনে বেড়াতে গিয়ে আটকা পড়েছেন শতাধিক পর্যটক। সাগর উত্তাল থাকায় বৃহস্পতিবার তাদের টেকনাফে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হয়নি।

মৌসুমি লঘুচাপের প্রভাবে বঙ্গোপসাগর প্রচণ্ড উত্তাল হয়ে পড়ায় কক্সবাজারের টেকনাফ-সেন্ট মার্টিন রুটে নৌযান চলাচল বুধবার বিকেল থেকে বন্ধ রয়েছে। এ কারণে পর্যটকেরা টেকনাফ থেকে চট্টগ্রাম ও ঢাকার দিকে ফিরে যাচ্ছেন।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ একেএম নাজমুল হক বৃহস্পতিবার বিকেলে বলেন, “উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপের প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগরে গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা সৃষ্টি হয়েছে। ফলে উপকূলীয় এলাকা ও সমুদ্র বন্দর সমূহের ওপর দিয়ে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ কারণে সাগর উত্তাল হয়ে পড়েছে। এর প্রভাবে চট্টগ্রাম, মংলা, কক্সবাজার ও পায়রা সমুদ্র বন্দর ও উপকূলকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কসংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত মাছ ধরার সকল নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। এর প্রভাবে শুক্রবার দেশের বিভিন্ন এলাকায় ঝোড়ো হাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।”

সেন্ট মার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন বলেন, “বুধবার বিকেলে লঘুচাপ সৃষ্টি হলে সাগর উত্তাল হয়ে পড়ে। এ কারণে টেকনাফ থেকে পর্যটকবাহী জাহাজ ও ট্রলার সেন্ট মার্টিনে আর যেতে পারছে না। ফলে সেন্ট মার্টিনে বেড়াতে আসা শতাধিক পর্যটক আটকা পড়েছেন। এরা দ্বীপের বিভিন্ন হোটেল ও কটেজে অবস্থান করছেন। পর্যটকেরা আজ সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত জাহাজ ও সার্ভিস ট্রলারে করে সেন্ট মার্টিন এসেছিলেন।”

পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারি সিন্দাবাদের টেকনাফের ব্যবস্থাপক মো. শাহ আলম বলেন, “সেন্ট মার্টিনে আটকে পড়া পর্যটকদের উদ্ধারের জন্য আজ সকালে তাঁরা টেকনাফ থেকে সেন্ট মার্টিনে যাওয়ার চেষ্টা চালায়। সারা দিন সাগর উত্তাল থাকায় সেন্ট মার্টিনে আটকে পড়া পর্যটকদের ফেরত আনা সম্ভব হয়নি।”

বেলা ১১টার দিকে অর্ধশতাধিক পর্যটক নিয়ে একটি ট্রলার টেকনাফের দমদমিয়া জেটিঘাট দিয়ে সেন্ট মার্টিনের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিল। প্রায় দেড় ঘণ্টা পর ১৭ কিলোমিটারের নাফ নদীর অতিক্রম করে বঙ্গোপসাগরের বদর মোকাম চ্যানেলে পৌঁছালে প্রচণ্ড ঢেউয়ের কবলে পড়ে।

No comments

Sorry, the comment form is closed at this time.