Homeসবুজ বিতর্কইটভাটার ধোঁয়ায় ৫০ একর বাগানের ফল নষ্ট !

ইটভাটার ধোঁয়ায় ৫০ একর বাগানের ফল নষ্ট !

নাটোর, ৮ মে : জেলার বড়াইগ্রাম উপজেলার মাঝগাঁও ইউনিয়নের ছাতিয়ানগাছা গ্রামে ইটভাটা থেকে নির্গত দূষিত বাতাসে ২০ একরের অধিক বাগানের আম এবং আরো ৩০ একর জমির কাঁঠাল, লিচুসহ সকল ধরনের ফল নষ্টের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ক্ষতিগ্রস্ত বাগান মালিকদের মাঝে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। তারা এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বড়াইগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, ছাতিয়ানগাছা গ্রামের কাজেম আলী, আক্কাস সরকার, মোতালেব হোসেন, আব্দুর রশিদসহ অধিকাংশ ব্যক্তির বাগানে আমের পচন ধরেছে। পচন ধরা আম ঝড়ে পড়ছে। একইসঙ্গে লিচু, কাঁঠাল, কলাসহ অন্যান্য ফলেও পচন ধরেছে। সেগুলোও ঝড়ে যাচ্ছে।

বাগান মালিক কাজেম আলী বলেন, ‘আমার সংসারে আয়ের একমাত্র উৎস আমের বাগান। আমার ১৮ বিঘা আমের বাগানের অধিকাংশ আম পচে গেছে ইটভাটার দূষিত বাতাসে। এবার আমাকে পথে বসতে হবে।’

ফল চাষী আব্দুর রশিদ বলেন, ‘গত বছর এক একর বাগানের আম তিন লাখ টাকায় বিক্রি করেছিলাম। একার ওই বাগানে ৩০ হাজার টাকার আমও অবশিষ্ট নাই।’

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, ‘ইটভাটার দূষিত বাতাসের কারণে অনেক সময় ফলের ক্ষতি হয়ে থাকে। ছাতিয়ানগাছায় কেন আমসহ অন্যান্য ফল নষ্ট হচ্ছে তা ক্ষতিয়ে দেখতে হবে।’

ইটভাটার সালিক এমএ আলিম বলেন, ‘আমার ইটভাটা আরো ১৫ বছর আগে থেকে চলছে। ইটভাটার কারণে নয়, হয়তো শিলা-বৃষ্টি বা আবহাওয়াজনিত করণে আমসহ অন্যান্য ফলে পচন ধরেছে। ক্ষতিগ্রস্তদের বলা হয়েছে পচনের সঠিক কারণ নির্ণয় করতে। যদি ইটভাটার জন্য ক্ষতি হয়ে থাকে তাহলে তাদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সবুজপাতা প্রতিবেদন

No comments

Sorry, the comment form is closed at this time.